টেনিস তারকা বিহারে ধ্যান করেই চ্যাম্পিয়ন

টেনিস তারকা বিহারে ধ্যান করেই চ্যাম্পিয়ন: গত ১২ জুলাই (রবিবার) সার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ তার টানা চতুর্থ উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার আগে একটি থাই বৌদ্ধ মন্দিরে সময় কাটিয়েছেন। বৌদ্ধ বিহারটি চলমান টেনিস টুর্নামেন্ট এর আইকনিক স্পোর্টস কমপ্লেক্সের কাছে।

ওয়াট বুদ্ধপাদ্বীপা মন্দিরটি যুক্তরাজ্যের প্রথম ঐতিহ্যবাহী থাই মন্দির হিসাবে ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। বর্তমানে এটি ইউনাইটেড কিংডমের থাই ভিক্ষু সংঘ পরিষদের বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক ও বৌদ্ধ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

সার্বিয়ান টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ।

বছরের পর বছর ধরে, জোকোভিচ ওয়াট বুদ্ধদ্বীপ মন্দিরে নিয়মিত আসা যাওয়া করছেন। তিনি প্রায় সময় মন্দিরে এসে সকালে ধ্যান অনুশীলন করেন। মন্দিরের ভিক্ষুরা তাকে “আমাদের বন্ধু” হিসাবে বর্ণনা করেছেন। জোকোভিচ তার সাফল্যের চাবিকাঠি হিসাবে নিয়মিত ধ্যান অনুশীলন থেকে উদ্ভূত শান্ত মনকে কৃতিত্ব দিয়েছেন।

ফাইনাল ম্যাচের আগে মন্দিরের দায়িত্বে থাকা জ্যেষ্ঠ বৌদ্ধ ভিক্ষু শ্রদ্ধেয় পিয়োভাসো বলেন, “আমি তাকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে দেখতে চাই।”

অস্ট্রেলিয়ার নিক কিরগিওসের বিপক্ষে ম্যাচের পর কিরগিওস বলেছেন, “তিনিই একমাত্র চ্যাম্পিয়ন, এখন পর্যন্ত তিনি উইম্বলডনে মোট সাতটি টুর্নামেন্ট জিতেছেন, দীর্ঘদিন ধরে তিনি ম্যাচের আগে মধ্যে ধ্যানের জন্য বিখ্যাত। আমি দেখেছি তিনি খুবই স্থীর, শান্ত। এটাই আমি শুধু ভাবছিলাম। কঠিন মুহুর্তগুলিতে, মনে হয়েছিল যে তিনি কখনই বিচলিত হননি। আমি মনে করি এটিই তার সবচেয়ে বড় শক্তি। তাঁকে কখনই বিচলিত দেখায় না। পুরো সময়টা সে শুধু নিজের মধ্যেই থাকে। মনে হচ্ছিল না যে তিনি অতিরিক্ত আক্রমণাত্মক খেলছেন, যদিও মনে হয়েছিল যে তিনি খুবই ভাল খেলছেন।”

২০১৫ সালে, উইম্বলডনে জয়ের আগে, জোকোভিচ বলেছিলেন, “আমি নিজেকে শুধুমাত্র বর্তমান মুহুর্তে রাখার চেষ্টা করি, চিন্তা, চাপ এবং উত্তেজনার বিরুদ্ধে লড়াই করি না, তবে কেবল সেগুলি স্বীকার করি এবং আমার নিজেকে সংযত রাখার চেষ্টা করি। আমি শান্ত এবং মুহূর্তগুলো উপভোগ করার চেষ্টা করি।”

২০১৩ সালে, ব্রিটিশ খেলোয়াড় অ্যান্ডি মারের কাছে হারের আগে, জোকোভিচ তার মন্দিরে যাওয়ার কথা বলেছিলেন:

আমি বৌদ্ধ বিহারের কাছেই থাকি। আমি জানি এটা স্পষ্টতই শান্ত এবং মুক্ত জায়গায়। বিহারটি আমি প্রায় পরিদর্শন করি। আমরা উইম্বলডন এবং লন্ডনকে সাধারণভাবে পছন্দ করি কারণ এখানে অনেক সুন্দর পার্ক এবং প্রকৃতি আছে, পার্কগুলো এমন জায়গা যাকে আপনি গেটওয়ে বলতে পারেন, যেখানে এই দুই সপ্তাহের ব্যস্ত গ্র্যান্ড স্ল্যাম পরিবেশের চারপাশে অনেক মানুষ, স্পষ্টতই বিশাল পরিমাণে চাপ এবং স্ট্রেস। তাই আপনার এমন একটি জায়গা থাকা দরকার যেখানে আপনি জানেন যে যেখান থেকে আপনার মুমূর্ষ ব্যাটারিগুলি বন্ধ করতে এবং রিচার্জ করতে পারেন। আর বৌদ্ধ বিহার হলো সেই জায়গা।

শ্রদ্ধেয় ভিক্ষু পিয়োভাসো।

পিয়োভাসোর মতে, “[জোকোভিচ] বলেছিলেন যে ধ্যান তার টেনিস খেলায় সাহায্য করে। এবং ধ্যানের কারণে তিনি সেই মুহূর্তে যা কিছু করছেন তাতে মনোযোগ দিতে পারতেন। তিনি আরো বলেন, “সে যখন টেনিস খেলে, তখন সে শুধু গেম টু গেমে ফোকাস করে, সে কখনো ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করেনি। শুধু খেলায় ফোকাস করুন, এটিই তিনি ধ্যান থেকে অর্জন করেছেন। এবং এটা কাজ করেছে।”

জোকোভিচ একজন অর্থোডক্স খ্রিস্টান। এটি তার জন্মস্থান সার্বিয়ার সবচেয়ে সাধারণ ধর্ম। ২০১৫ সালে প্রকাশিত তথ্যনুসারে সার্বিয়াতে ৮৪.৬ শতাংশ অর্থোডক্স খ্রিস্টান, ৫ শতাংশ ক্যাথলিক, ৩.১ শতাংশ মুসলিম, ১ শতাংশ কোন ধর্ম বিশ্বাস করে না ১ শতাংশ প্রোটেস্ট্যান্ট এবং ৩.১ শতাংশ অনুষঙ্গী।

পিয়োভাসো জানিয়েছেন, “জোকোভিচ এটা পরিষ্কার করেছেন যে তিনি একজন বৌদ্ধ নন কিন্তু তিনি বিহারে গিয়ে ধ্যান পছন্দ করেন। ধ্যানের অর্থ হল আপনি মনের গুণমান বিকাশের চেষ্টা করছেন, একাগ্রতা তৈরি করার চেষ্টা করছেন, স্বাচ্ছন্দ্য এবং শান্তি অনুভব করছেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!