অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন এর ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি উদযাপন

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন এর ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি উদযাপন: চট্টগ্রাম নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহার কেন্দ্রিক বৌদ্ধ সংগঠন অগ্রদূত উদযাপন করেছে তাদের ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি। গত ২৫ নভেম্বর ২০২২ ইং, রোজ শুক্রবার “অগ্রগতির অর্ধযুগে অগ্রদূত” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বৌদ্ধ সংগঠনের অগ্রগামী তরুণ সদস্য এবং শুভাকাঙ্খিদের পৃষ্টপোষকতায় বিভিন্ন ধর্মীয় ও সেবামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে তাদের ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি সম্পন্ন করেছে।

৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি উদযাপনকে কেন্দ্র করে একটি সুন্দর উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়। ১২ সদস্য বিশিষ্ট্য উদযাপন কমিটিতে ছিলেন আহবায়ক অনিন্দ্য বড়ুয়া, সদস্য সচিব সুষ্ময় বড়ুয়া, অর্থসচিব প্রত্যয় চৌধুরী ঋদ্ধি, প্রধান সমন্বয়কারী উৎস বড়ুয়া, সমন্বয়কারী প্রজ্ঞা বড়ুয়া, সদস্য হিসেবে ছিলেন রবিন বড়ুয়া, ইমন চৌধুরী, জিতু বড়ুয়া, রিগ্যান বড়ুয়া, পূজা বড়ুয়া এবং অর্পিতা বড়ুয়া।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনে সদস্য হওয়া যাবে কিনা?
সমবেত প্রার্থনায় অগ্রদূতের সদস্যবৃন্দ

চট্টগ্রাম নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারে বুদ্ধপূজা ও সমবেত বন্দনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি বাবু প্রত্যয় বড়ুয়া নিলয়। নন্দনকান থেকে শুরু হওয়া বাস ভ্রমনের গন্তব্য ছিল জোবরা গুনালংকার বৌদ্ধ অনাথ আশ্রম।  আশ্রমের সুবিধাবঞ্চিত শিশু-কিশোরদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগির মাধ্যমেই অগ্রদূত তাদের ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি পালন করেছে। ত্রিপিটক পাঠ, পঞ্চশীল গ্রহন, বুদ্ধপূজা, জাতীয় সংগীত ও উদ্বোধনী সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব। অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে শিশুদের জন্য আয়োজন করা হয় বিভিন্ন প্রতিযোগীতা ও খেলাধুলা। পরে প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে বিতরণ করা হয় পুরষ্কার।

আশ্রমের শিশুদের সাথে নিয়ে মধ্যাহ্নভোজনের পর বিকালে বৈকালিক বুদ্ধ বন্দনা, পঞ্চশীল গ্রহণ, অষ্টপরিষ্কার দান, পানীয় ও অন্যান্য সামগ্রী দান, সূত্রপাঠ এবং ধর্মোপদেশ শ্রবণ করেন উপস্থিত সকল শিশু-কিশোর, সংগঠনের সদস্যসহ গ্রাম থেকে আগত পূণ্যার্থী তথা দায়ক-দায়িকাগণ।

অগ্রদূতের সদস্যসহ সকলের প্রতি দিকনির্দেশনামূলক ধর্মোপদেশ প্রদান করেন জোবরা সুগত বিহারের উপাধ্যক্ষ ভদন্ত নিরোধানন্দ ভিক্ষু। এসময় সংগঠনের উপদেষ্টা সুজয় বড়ুয়া সংগঠনের বিভিন্ন কার্যক্রম সকলের সামনে উপস্থাপন ও অনুষ্ঠানের শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সংগঠনের শ্রীবৃদ্ধি কামনা করে বক্তব্য প্রদান করেন।

ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আশীর্বাদক জোবরা সুগত বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শীলরক্ষিত মহাথের সংগঠনের উত্তরোত্তর সফলতা কামানা করেন। এই সময় শ্রদ্ধেয় ভান্তের চিকিৎসা জন্য অগ্রদূতের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাদান প্রদান এবং ভান্তের সুস্থজীবন প্রার্থনা করা হয়।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন এর ৬ষ্ঠ বর্ষপুর্তি উদযাপন
শিশুদের প্রতিযোগীয় অংশগ্রহণ

সংগঠনের আইটি সম্পাদক হিমেল বড়ুয়া বলেন, ”মানুষের পাশে থাকতে পারলে সবসময় ভালো লাগে যখন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ এবং বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার প্রদান করা হয় তাদের মুখ হাসি ও আনন্দে ভরে ওঠে, এটাই ছিল আমাদের সারা দিনের পাওনা।

সন্ধ্যা নন্দনকানন বৌদ্ধ বিহারে পঞ্চশীল গ্রহণসহ ফানুস উত্তোলন, হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, সকল প্রাণির সুখ ও বিশ্ব শান্তি কামনা করে শেষ হয় অগ্রদূতের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন কি, তারা কি করে

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন ২০১৬ সালে কয়েকজন অগ্রগামী বৌদ্ধ যুবকের হাত ধরে গড়ে ওঠে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সংগঠনটি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। এই পর্যন্ত অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনের ৫০ জন সদস্য আছে। মাসিক ৫০ টাকা আর্থিক শ্রদ্ধাদান তাদের প্রাথমিক আর্থিক উৎস। তবে তারা আগ্রহী দাতা প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিগণের পক্ষ থেকেও অর্থ সংগ্রহ করে সমাজ উন্নয়নের কাজ করে।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠন ২০১৭ সালে দেশ বিদেশের সম্মানিত দাতা এবং নিজেদের আর্থিক  সহযোগিতায় সাজেকে ১২৫ টি পরিবারের মধ্যে ১ লক্ষ ১৭ হাজার টাকার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, ২০১৮ সালে ক্যান্সার আক্রান্ত এক রোগীর জন্য একদিনের ক্যাম্পেইনে  ৩২ হাজার টাকা সংগ্রহ ও সহায়তা করে।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনে সদস্য হওয়া যাবে কিনা?
মধ্যাহ্নভোজনের একাংশ

২০১৯ সালে রাউজানে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ৯টি পরিবারকে বিভিন্নভাবে সহযোগীতা করে সংগঠনটি। ২০২০ সালে শুরু হওয়া করোনা মহামারির সময় চট্টগ্রাম শহরসহ পুরো বাংলাদেশে অক্সিজেনের চরম সংকট মোকাবেলায় Save The Buddhist People Community (STBPC) নামে ফান্ড গঠন করে অক্সিজেনের জন্য অর্থ সহায়তা সংগ্রহ করতে অগ্রদূত অগ্রগণী ভূমিকা পালন করে। ২০২২ সালে ৮৩,৬৩২ টাকা অর্থ সহায়তা দেয় অন্য এক ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসা খরচের জন্য।

অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনে সদস্য হওয়া যাবে কিনা?

চট্টগ্রাম শহর ও শহর সংলগ্ন এলাকার যে কোন বৌদ্ধ ব্যক্তি (সাবালক) স্বেচ্ছায় অগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনে যুক্ত হওয়ার জন্য সংগঠনের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট বা ফরমে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন ফরমে দেয়া তথ্যসমূহ পর্যালোচনা করে সংগঠনের সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হলে আবেদনকারীকে সদস্য পদ দেওয়ার বিধান আছে আগ্রদূত বৌদ্ধ সংগঠনে। তবে তাকে অবশ্যই ধর্মীয় ও সেবামূলক কাজে অংশগ্রহণ এবং সহায়তা করার জন্য আগ্রহী হতে হবে।

যোগাযোগ: dstbpagradut2016@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!