পৃথিবী হারিয়েছে আরেকটি সুন্দর ফুল

থিচ নাট হ্যান, এই শতাব্দীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ বৌদ্ধ গুরু, গত ২২ জানুয়ারী, ২০২২ ভিয়েতনামে তার বাসভবনে শারীরিক দেহ ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

ভিয়েতনাম যুদ্ধের সময়, থিচ নাট হ্যান সংঘাতের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলেন এবং যুদ্ধের বিরোধিতার কারণে শেষ পর্যন্ত তার মাতৃভূমি ত্যাগ করতে হয়েছিল। পরে তিনি ফ্রান্সের প্লাম গ্রামে বসতি স্থাপন করেছিলেন, যেখানে তিনি তার জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন সমসাময়িক বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী মননশীল ধ্যানের মাস্টারদের একজন।

কখনও কখনও তাকে “পশ্চিমের দালাই লামা” নামে পরিচিত হতে দেখা যায়। থিচ নাট হ্যান ছিলেন একজন কবি, একজন শিক্ষাবিদ এবং একজন শান্তিকর্মী মানুষ। তিনি ছিলেন উদ্যান ও প্রকৃতির প্রেমিক এবং একজন প্রসিদ্ধ লেখক। তিনি অনেক বই এর লেখক। তার অনেক বই স্পষ্ট এবং সুন্দরভাবে লেখা, বিশ্বব্যাপী বিখ্যাত হয়ে উঠেছে এবং বিশ্বের প্রধান প্রধান লাইব্রেরিগুলোতে স্থান পেয়েছে।

থিচ নাট হ্যান ডঃ মার্টিন লুথার কিং জুনিয়রের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন। যিনি তাঁর শিক্ষা এবং শান্তির জন্য পরিচালিত আন্দোলন দ্বারা এতটাই অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন যে তিনি তাকে ১৯৬৭ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছিলেন। ডঃ মার্টিন লুথার সেময় বলেছিলেন, “নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য ভিয়েতনামের এই ভদ্র সন্ন্যাসীর চেয়ে যোগ্য আমি আর কাউকে জানি না।”

ডঃ কিং থিচ নাট হ্যানের শান্তি আন্দোলন দ্বারা এতটাই প্রভাবিত হয়েছিলেন যে তিনি এই সন্ন্যাসীর সাথে যুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে এসেছিলেন।

আমাদের পৃথিবী আজ, ক্ষমতার ক্ষুধা এবং যুদ্ধবাজ নেতাদের দ্বারা এতটাই হুমকির মধ্যে যে, জরুরীভাবে থিচ নাট হ্যান এবং ডঃ মার্টিন লুথার কিং জুনিয়রের মতো আরও শিক্ষক এবং নেতাদের প্রয়োজন৷

যদিও তিনি ভিয়েতনামী মহাযান বৌদ্ধ ঐতিহ্যে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং বেড়ে উঠেছিলেন, তবুও ধ্যানের বিষয়ে থিচ নাট হ্যান-এর শিক্ষাগুলো পালি ত্রিপিটকে পাওয়া বিখ্যাত মহাসতিপত্তন সুত্তের মধ্যে গভীরভাবে প্রোথিত আছে। তার লিখিত “দ্য আর্ট অফ মাইন্ডফুল লিভিং” এর জনপ্রিয় শিক্ষাগুলো বিপুল সংখ্যক সত্য-সন্ধানী এবং শান্তিপ্রেমীদের আকর্ষণ করেছিল।

থিচ নাট হ্যান অত্যন্ত দক্ষতার সাথে এবং সফলভাবে জটিল বৌদ্ধ দার্শনিক ধারণাগুলোকে সহজ করেছিলেন এবং তাদের সমসাময়িক বিশ্বের সাথে খাপ খাইয়েছিলেন। তিনি বিশ্বজুড়ে অনেক ধ্যান কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছেন, তার বিপুল সংখ্যক অনুসারী এখন বিশ্বজুড়ে বিচরন করছে।

এই মহান আলোকিত মাস্টারের প্রয়াণের মধ্য দিয়ে বুদ্ধধম্মের সবচেয়ে উজ্জ্বল নক্ষত্রগুলোর একটি খসে পড়লো। তার শিক্ষা, উত্তরসূরী, তার চমৎকার বই এবং শিক্ষার মাধ্যমে চিরকাল বেচেঁ থাকবেন আমাদের মাঝে।

আমি লক্ষ লক্ষ ভক্তদের মধ্যে একজন যারা থিচ নাট হ্যানের অসাধারণ শিক্ষা থেকে উপকৃত হয়েছেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে সদ্ধর্মের এই মহান ফুলটিকে গভীরভাবে অনুভব করব চিরদিন।

 

ভিক্ষু সংঘসেনা, লাদাখ, ভারত।

(অনুবাদ: শিমুল বড়ুয়া উনন, সম্পাদক: বৌদ্ধ বার্তা ডটকম)

 

আরো পড়ুন>>

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!