গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর চালু ১৬ মে

গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর চালু ১৬ মে। চলতি মাসে শুরু হতে যাচ্ছে নেপালের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের আফিসিয়াল কার্যক্রম। নতুন এই বিমান বন্দরের নাম গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর।

এটি নেপালের লুম্বিনি প্রদেশের রূপন্দেহী জেলার ভাইরালা পৌরসভায় অবস্থিত। গত ২২ এপ্রিল আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনার যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করার খবর পাওয়া গেছে।

গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর

আগমী ১৬ মে জন্ম দিন (বুদ্ধ পূর্ণিমা) উপলক্ষ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে বিমান বন্দরটি উদ্বোধন করা হবে। এবং এদিন থেকেই আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনা শুরু হবে। নেপালের ট্যুরিজম এন্ড সিভিল এভিয়েশনের মন্ত্রনালয় থেকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর

সূত্রমতে, থাইল্যান্ডের একটি বিশেষজ্ঞ দল এই উদ্বোধনী ফ্লাইটটি পরিচালনা করার জন্য যাবতীয় প্রযুক্তিগত সহায়তা দিয়ে যাবে। তাদের নেতৃত্বে বিমানের পরীক্ষামূলক সাইটও নিরীক্ষণ করা হচ্ছে।

এর আগে সমগ্র নেপাল জুড়ে রাজধানীর কাঠমুণ্ডুর আন্তর্জাতিক ত্রিভুবন বিমান বন্দরটিই ছিল একমাত্র বিমান বন্দর। গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর চালু হওয়ার পর দেশটিতে দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর হবে নেপালে। এখন থেকে ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের মতো সব ধরনের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট উড্ডয়ন ও অবরতণ করতে পারবে। এখানে একটি আধুনিক আদর্শ বিমান বন্দরে যতরকম সুযোগ সুবিধা থাকার কথা সব ধরনের সুবিধা থাকবে যা ত্রিভুবন বন্দরে ঘাটতি আছে। বর্তমানে এটি শুধুমাত্র অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দর হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

নতুন এই গৌতম বুদ্ধ বিমান বন্দরে আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশনের নিয়ম মেনে জরুরী অবতরনের সবধরনের সুযোগ সুবিধা রাখা হয়েছে। এর ফলে বৈরি আবহাওয়াতে নেপালে জরুরী বিমান অবতরণ নিয়ে কোন ধরনের অসুবিধা হবে না।

এদিকে এতদিন ধরে একমাত্র ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকেই যাবতীয় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনা করতো দেশটি। ত্রিভুবন বিমান বন্দরটি হিমালয় পর্বতের কাছে অবস্থিত হওয়ায় বৈরী আবহাওয়ায় ও পাহাড়ি ঢালের কারনে বিভিন্ন দূর্ঘটনার শিকার হতো বিমানগুলো। উল্লেখ্য, ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে ছিল না কোন জরুরী অবতরণ ব্যবস্থা।

গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের অবকাঠামো আগেই তৈরী ছিল। ১৯৫৮ সাল থেকে নেপালের ডমেস্টিক ফ্লাইটগুলো পরিচালনা করতো গৌতম বুদ্ধ বিমান বন্দর। দূর্ঘটনা ঠেকাতে সমতলে আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর তৈরী করা ছিল সব সময়ের দাবী। নেপালের মানুষের সেই দাবী পূরণ করতে যাচ্ছে গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর।

গৌতম বুদ্ধ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ডয়াগ্রাম

উইকিপডিয়ার তথ্যমতে, এই বিমানবন্দরের অবস্থান সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩৫৮ ফুট (১০৯ মি) উপরে। পিচের তৈরি রানওয়ের ডিজাইন ১০/২৮ এবং পরিমাপ ১,৫১০ বাই ৩৪ মিটার (৪,৯৫৪ ফু × ১১২ ফু)।

এই বিমানবন্দরটিতে ৩,০০০ মিটার রানওয়ে এবং ছয়টি আন্তর্জাতিক বিমান পার্কিং-এর আছে। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক এই বিমানবন্দরের উন্নয়নের অর্থের যোগান দিয়েছে। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক যথাক্রমে $৪২.৯৬ মিলিয়ন এবং $১২.৭৫ মিলিয়ন ডলার দিয়েছে নেপাল সরকারকে।

আরো পড়ুন>>

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!