বিতর্কীত নট ফর সেল ক্লাবের “বুদ্ধ গ্রাফিক্স গাইড” নিষিদ্ধ করার দাবী

পৃথিবী বদলে দেওয়া মানুষ ও বিষয় নিয়ে ‘বই বিপ্লব’ সিরিজের প্রথম বই সিদ্ধার্থ গৌতম বুদ্ধের পূর্ণাঙ্গ জীবনী কালেক্টর’স এডিশন ‘বুদ্ধ গ্রাফিক গাইড’ উন্মুক্ত হয়েছে।

Not for sale

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীসহ দেশের ১১ টি বৌদ্ধ বিহারের প্রধান ভান্তেরা (ধর্মগুরু) বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন।
এরমধ্যে বইটির বিষয়ে যথেষ্ট বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে নেট দুনিয়ার বৌদ্ধদের মধ্যে।
বইটিতে ব্যবহৃত ছবি, কার্টুন ও গ্রাফিক্সে বুদ্ধকে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে বলে বিভিন্ন বৌদ্ধ ধর্মীয় পেইজে প্রতিবাদের ঝড় ওঠেছে।

বুদ্ধ গ্রাফিক গাইড
ছবিটি ফেইজবুক থেকে সংগৃহিত

ব্যবহৃত ছবি গুলো দেখে বুঝতে অসুবিদে হবে না বইটি কতটা অশ্লিল, নোংরা ও রুচিহীন। ছবি গুলো বিভিন্ন বৌদ্ধধর্মীয় পেইজে ভাইরাল হয়েছে। বেশিরভাগ পোষ্টগুলোতে বৌদ্ধদের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে বইটি বন্ধ করার জন্য ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জোর দাবী জানানো হয়েছে।

“Buddha a graphic guide“ মূল গ্রন্থের বৃটিশ লেখক Borin van loon এবং jane hope! তারা মূলগ্রন্থে প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলোর বর্ণনার সুবিধার্থে যেসকল প্রতিকী চিত্র ব্যবহার করেছেন তা খুবই মার্জিত ও রুচিসম্মতই ছিল।
মূল গ্রন্থে থেরবাদী-মহাযানী মিলিয়ে গ্রন্থের আলোচনা ও সংযোজিত চিত্রগুলো দেখে যে কোনো অবৌদ্ধ বুদ্ধ ও তার দর্শনে প্রাথমিক ধারনা অর্জন করতে সক্ষম। নট ফর সেল, উক্ত গ্রন্থটির অনুবাদ/ভাষান্তরের ভাব মূলগ্রন্থের সাথে সামন্জস্য রাখার চেষ্টা করলেও বিপত্তি ঘটল প্রতীকি ছবি/চিত্র সম্পাদনা নিয়ে।

Not for sale
ছবিটি ফেইজবুক থেকে সংগৃহিত

মূলের সাথে মিল না রেখে নট ফর সেল তাদের ইচ্ছে মতো – যৌনতায় ভরপুর কুরুচি ও অমার্জিত ছবি/চিত্র সম্পাদনা করে- বুদ্ধ ও তার দর্শনকে কামসূত্রের ছায়াপটে উপস্থাপন করেছেন বলে অভিযোগ ওঠেছে।

গ্রন্থটির অভ্যান্তরের বেশ কিছু চিত্র দেখা মাত্রই যেকোনো বৌদ্ধ ধর্মবিশ্বাসীর মনে বুদ্ধ ও বৌদ্ধধর্মকে নিয়ে বিরূপ ও বিকৃত ধারনা উদিত হতে বাধ্য। এই যেন মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ার মতো অবস্থা।

বইটির প্রচার ও প্রসার রোধে দ্রুত নিষিদ্ধ করার জন্য ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করার পাশাপাশি সরকারের প্রতি অনুরোধ করেছে সর্বস্থরের ধর্মপ্রাণ বৌদ্ধ জাতী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!