বৌদ্ধ ভিক্ষুকে গ্রেপ্তার করেছে থাইল্যান্ড পুলিশ

আন্তর্জাতিক শরণার্থী মর্যাদা প্রাপ্ত একজন বৌদ্ধ ভিক্ষুকে গ্রেপ্তার করেছে থাইল্যান্ড পুলিশ। এতে থাইল্যান্ড সহ সারা বিশ্বের মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো থাই কর্তৃপক্ষের সমালোচনয় মেতেছে।

ভদন্ত বোর বেট একজন পরিবেশবাদী প্রচারক এবং কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের একজন সোচ্চার সমালোচক। বুধবার শেষরাতে দক্ষিণ ব্যাংককের একটি মন্দির থেকে বোর বেটকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

থাইল্যান্ড ব্যাংকক পোস্ট পত্রিকা বৃহস্পতিবার জানিয়েছে যে ভিক্ষু বোর বেট আটক হওয়ার কারণ অস্পষ্ট। তবে মানবাধিকার সংস্থাগুলো উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে ভদন্ত বোর বেট যে দেশ থেকে পালিয়ে এসেছেন তাকে হয়তো সে দেশে ফিরে যেতে হতে পারেন। তারা জনিয়েছে জানিয়েছে হয়তো তাকে কম্বোডিয়া সরকারের বিরুদ্ধে ভিন্নমতের কারনে গ্রেপ্তারের করা হতে পারে। নির্বাসিত হলে ভদন্ত বোর বেট হবেন চতুর্থ শরণার্থী যাকে চার সপ্তাহের মধ্যে কম্বোডিয়ায় ফেরত পাঠানো হবে।

গতকাল এক অডিও বার্তায় ভন্তে বলেন, “যদি তারা আমাকে কম্বোডিয়ায় ফেরত পাঠায় তাহলে আমাকে অন্যান্য শরণার্থীদের মতো আমাকেও কারাগারে পাঠানো হবে।”

UNHCR এর রেজিস্টার উদ্বাস্তু বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ভদন্ত বোর বেট সামুত প্রাকান থেকে ব্যাংককের সুয়ান ফ্লু ইমিগ্রেশন ডিটেনশন সেন্টারে স্থানান্তরিত হতে পারে বলে জানিয়েছে সূত্র।

Ven. Bor Bet
Ven. Bor Bet’s UNHCR ID card.

ফিল রবার্ট সন নামের একজন মানবাধিকার কর্মী টুইটারে প্রতিবাদ জানিয়ে লিখেছেন, ”কোন অবস্থাতেই থাইল্যান্ড কর্তৃপক্ষের বোর বেটকে জোর করে কম্বোডিয়ায় ফেরত পাঠানো উচিত হবে না। তিনি একজন উদ্বাস্তু, তার অধিকার রক্ষা করা থাইল্যান্ড সরকারের কর্মতব্য।”

থাইল্যান্ডের ডেমোক্র্যাট পার্টির ডেপুটি মুখপাত্র সিরিপা ইন্তাভিচিয়েন বলেছেন, “আমরা বিশ্বাস করি এই ধরনের গ্রেপ্তার নির্যাতন এবং জোরপূর্বক গুম প্রতিরোধের অধীনে হওয়া উচিত যার ব্যাপারে থাইল্যান্ড প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

সিরিপা থাই সরকারকে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার নির্দেশিকা মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছে যেটিতে থাইল্যান্ড স্বাক্ষর করেছে। তিনি বোর বেট এবং অন্যান্য রাজনৈতিক ভিন্নমতাবলম্বীদের মুক্তির পক্ষে কথা বলছেন। তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে ব্যাংককের সুইস দূতাবাস একটি জরুরি ভিসা জারি করেছে যা ভদন্ত বোর বেটকে সুইজারল্যান্ডে আশ্রয় নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে।

ভদন্ত বোর বেট রাজনৈতিক বিরোধীদের বিরুদ্ধে সরকারী দমন-পীড়নের সময় গ্রেপ্তার হওয়ার বিরোদ্ধে কথা বলেন। তিনি গ্রেপ্তারকৃত শ্রমিক ইউনিয়ন নেতাকে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে নম পেনে বিক্ষোভে অংশ নেওয়ার কারনে তার বিরোদ্ধে গ্রেপ্তারি পরায়ানা জারি করেছে কম্বোডিয়া সরকার। মূলত গ্রেপ্তার এড়াতেই তিনি 2020 সালের নভেম্বর থাইল্যান্ডে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, থাইল্যান্ড একটি প্রধানত থেরবাদ বৌদ্ধ দেশ। ২০১৫ সালের সরকারি আদমশুমারি তথ্য অনুসারে দেশের ৬৯ মিলিয়ন জনসংখ্যার ৯৪.৫ শতাংশ বৌদ্ধ। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রায় ৪০,০০০ বৌদ্ধ মন্দির এবং প্রায় ৩০০,০০০ ভিক্ষু অবস্থান করে থাইল্যান্ডে। দ্য ওয়ার্ল্ড ফ্যাক্ট বুকের ২০১৩ সালের তথ্য অনুসারে বৌদ্ধধর্ম হল কম্বোডিয়ার সরকারী ধর্ম, যেখানে ১৫.৬ মিলিয়ন জনসংখ্যার ৯৭.৯ শতাংশ থেরবাদ ঐতিহ্য অনুসরণ করে। কম্বোডিয়ার সংস্কৃতি ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতে, কম্বোডিয়ায় ৫৯,৫১৬ বৌদ্ধ ভিক্ষু এবং ৪,৭৫৫টি বৌদ্ধ বিহার রয়েছে।

আরো পড়ুন>>

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!