তিব্বতি বৌদ্ধ বিহার ভারতের জন্য ৮২,০০০ মার্কিন ডলার জোগাড় করেছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার রিচমন্ড হাইটসে অবস্থিত ”গ্যায়াটো ফাউন্ডেশন তিব্বতি বৌদ্ধ বিহার ও শিক্ষা কেন্দ্র” ভারতে জরুরী চিকিৎসা ত্রাণ সহায়তার জন্য ৮২,০০০ মার্কিন ডলার বেশি জোগাড় করেছে। এই মহৎ কাজটি করেছেন পূজনীয় ভিক্ষু থাপটেন ডোনিও। গ্যায়াটো ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন পরিচালক থাপটেন ডোনিও গত ২৪ এপ্রিল থেকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটে এই অর্থ যোগাড় করেছেন যাতে ভারতের নয়াদিল্লীতে অবস্থিত তিব্বতি ক্যান্সার সোসাইটিতে চিকিৎসারত কভিড-১৯ রোগীদের জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ ও মজুদ করতে এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সমগ্রী ক্রয় করতে পারে।

Ven. Thupten Donyo. From gyutofoundation.org

তহবিল সংগ্রহের লক্ষ্য ছাড়িয়ে যাওয়ার পরে, GoFundMe এ নতুন অনুদান গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়া হয়। পূজনীয় ডোনিও বলেন, “আমরা তাত্ক্ষণিকভাবে অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দিয়েছি যাতে তহবিল ভারতে প্রেরণ করতে পারি। তারা যেন জরুরিভাবে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন ট্যাঙ্ক এবং এয়ার কনসেন্ট্রেটরের মতো প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি কিনতে পারে”।

সবাই একসাথে শোক এবং আবেগময় সমর্থন এর অংশিদার হওয়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য গ্যায়াটো ফাউন্ডেশন তিব্বতীয় বৌদ্ধ বিহার ও শিক্ষণ কেন্দ্রে গত ৮ মে একটি বিশেষ প্রার্থনার অয়োজন করে। সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক পড়ে উপস্থিত সকলে সমবেত প্রার্থনা করে সকলের রোগমুক্তি সহ সমগ্র বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ কামনা করে। উল্লেখ্য পূজনীয় ভিক্ষু দালায় লামা প্রার্থনা অনুষ্টানিতে সভাপত্ত্বি করেন।

ভিক্ষু ডনিও বলেন, “আমরা এই প্রার্থনার মাধ্যমে আমরা ভারতের মানুষের দুঃখকষ্ট ভাগ করে নেওয়ার নিয়েছি। “যেহেতু আমাদের মহান গুরা দালায় লামা সহ এক লক্ষেরও বেশি তিব্বতীদের জন্য ভারত দ্বিতীয় বাড়ি। ৬০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ১৯৫৯ সাল থেকে, ভারত সরকার তিব্বতিদের আশ্রয়, শিক্ষা এবং ধর্মীয় স্বাধীনতা এবং পাশাপাশি চলাচলের রাজনৈতিক স্বাধীনতা দিয়ে আসছে। যদি ভারত সরকার তিব্বতিদের তাদের কঠিন সময়ে সমর্থন না করে, তবে একটি দেশ ছাড়া তাদের সংস্কৃতি, ভাষা এবং ঐতিহ্য ধরে করা খুব কঠিন হবে। ভারতের মানুষ যদি ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তিব্বতীরাও একইরকম ক্ষতিগ্রস্থ হবে। অতএব, আমরা ভারত এবং ভারতের মানুষের জন্য প্রার্থনা করছি। উপকূলীয় তিব্বতি এবং সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা তিব্বতিরা বর্তমান কোভিড পরিস্থিতির কারণে ভারতের মানুষের দুঃখ ভাগ করে নিচ্ছে।”

Gyutofoundation

ভিক্ষু ডোনিও আরো বলেন, “আমরা আমাদের সমস্ত আমেরিকান বন্ধুদের স্বাগত জানাই এবং আমরা শুধু ভারত নয় কভিড-১৯ এর কারনে আমেরিকা সহ সমগ্র বিশ্বে যে সব মানুষ তাদের প্রিয়জনকে হারিয়েছে তাদের জন্য সমবেদনা জানাচ্ছি। প্রার্থনা করার সময় আমরা তিব্বতিতে প্রার্থনা সেবা করেছি এবং আমেরিকান বন্ধুরা তাদের হৃদয় থেকে প্রার্থনা করেছে এভাবে-

May all beings have happiness and the causes of happiness.

May all beings be free from suffering and the causes of suffering.

May all beings rejoice in the well-being of others.

May all beings live in peace, free from greed and hatred.” (Richmond Standard)

(সমস্ত প্রাণীর সুখী এবং সুখের কারণ হোক।

সমস্ত প্রাণী দুর্ভোগ ও যন্ত্রণার কারণ থেকে মুক্ত হোক।

সমস্ত প্রাণী অন্যের মঙ্গল নিয়ে আনন্দিত হোক।

লোভ ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত হয়ে সমস্ত মানুষ শান্তিতে বাস করুক।)

উল্লেখ্য, জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, ভারত এখন পর্যন্ত সর্ববৃহৎ কভিড-১৯ এর সবচেয়ে বড় ধাক্কা চলেছে, বর্তমানে দৈনিক মোট ৪০০,০০০ এরও বেশি রোগি সনাক্ত হচ্ছে। ১১ মে পর্যন্ত ভারতে মোট নিশ্চিত হওয়া রোগীর সংখ্য ২১,৮৯২,৬৭৬ ছাড়িয়ে গেছে ২৩৮,২৭০ মারা গেছে। বিশেষজ্ঞরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যে প্রকৃত সংখ্যাগুলি আরও বেশি হতে পারে। পরীক্ষা করার ব্যবস্থার স্বল্পতার করনে মোট আক্রন্তের সঠিক সংখ্যা বলা মুসকিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!