কানাডায় বৌদ্ধ আশ্রম তৈরীর অনুমোদন লাভ

গত ১৪ জুন, ২০২১ দ্য গ্রেট উইজডম বুড্ডিস্ট ইনস্টিটিউট (GWBI) বিশাল ডরমিটরিটি নির্মাণের জন্য সরকারী অনুমোদন পেয়েছে। ব্রুডেনেলেরে তত্ত্ববধানকারী থ্রি রিভারস টাউন কাউন্সিলের প্রতিনিধিরা স্থপনাটির লোকেশন, গুরুত্ব, কর্মকান্ড পর্যালোচনা করে বিল্ডিং পারমিট অনুমোদনের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে ভোট দেয়। স্থানীয় কিছু জনগোষ্ঠীর বিক্ষিপ্ত বিরোধিতার কারনে বিষয়টি বছরের পর বছর অপেক্ষা করেও কোন সিদ্ধান্ত পাওয়া যাচ্ছিল না। সর্বশেষ ১৪ জুন চূড়ান্ত অনুমোদন লাভ করেছে নির্মাণ কমিটি।

কানাডায় ক্রমবর্ধমান বৌদ্ধ ভিক্ষুণীদের স্থায়ীভাবে রাখার জন্য এই ভবন তৈরীর মূল উদ্দেশ্য। নতুন এই আশ্রমাগারটি ১৭৫ শয্য বিশিষ্ট বলে জানা গেছে। সর্বশেষ গণনামতে, কানাডার এই রাজ্যে ((PEI)) প্রায় ৫০০ ভিক্ষুণী বাস করে, তবে অনসাইট থাকার সুযোগ-সুবিধার অভাবে অনেকে ব্রুডেনেল বাইরেও থাকেন। স্থানীয় বৌদ্ধ সম্প্রদায় ১২০ হেক্টর জমিতে বিহার নির্মাণ করে প্রায় ১,৪০০ ভিক্ষুণী বাস উপযোগী আশ্রম করার পরিকল্পনা করেছে বলে জানা গেছে।

The Great Wisdom Buddhist Institute
Diagram of The Great Wisdom Buddhist Institute

নতুন নির্মিতব্য ইমারতটি বেসমেন্টসহ  একটি দ্বিতল বিল্ডিংয়ের করার অনুমতি পেয়েছে শহর কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। ভবনটির আয়তন প্রায় ১,৩০০ বর্গমিটার যার নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৮ মিলিয়ন কানাডিয়ান ডলার (৬.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)। ভবনটিতে আবাসনের পাশাপাশি শ্রেণিকক্ষ, ওয়াশরুম, লন্ড্রি সুবিধা, একটি রান্নাঘর এবং ভোজনশালার ব্যবস্থা থাকবে।

GWBI এর ভিক্ষুণী ভেন. ইয়োভন সাঁই বলেছেন, ”ভিক্ষুণীরা এই সংবাদটির জন্য কৃতজ্ঞ। এটি আমাদের সবার জন্য একটি দুর্দান্ত শিক্ষার যাত্রা। এটি আমাদের মনে করিয়ে দেয় যে যোগাযোগ কতটা গুরুত্বপূর্ণ এছাড়াও স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে সাথে নিয়ে কাজ করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ  সেটি আমরা বুঝতে পেরেছে।” (CBC News)

Nun of The Great Wisdom Buddhist Institute
Nuns of The Great Wisdom Buddhist Institute

গত বছর সেপ্টেম্বরে যখন প্রাথমিক গৃহীত উদ্যোগটি তিন থেকে সাতটি ভোটের ব্যবধানে ব্যার্থ হয় তখন ভিক্ষুণীরা স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে আরও বেশি আস্থা ও পারস্পরিক বোঝাপড়া তৈরির জন্য সংলাপ শুরু করে ছিল। আজকের এই অনুমোদনের পর তাদের মধ্যে আনন্দের কোন সীমা নেই।

প্রকল্পটির পক্ষে সমর্থন জানাতে ব্রুডেনেলের বাসিন্দা রোন্ডা ম্যাকলিন গত সপ্তাহের এক বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন যে স্থানীয়দের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে ২০১০ এর মাঝামাঝি থেকে GWBI’র উন্নয়ন সুষ্ঠুভাবে এগিয়ে গেছে খুব তাড়াতাড়ি আমরা অনুমতি পাবো বলে আশা করছি।

ভিক্ষুণীরা যখন জানতে পারলেন যে স্থানীয়ভাবে বৌদ্ধ  জনসংখ্যা এবং তাদের সমর্থকদের ক্রমবর্ধমান সংখ্যার কারণে এক সম্প্রদায়ের মানুষ চিন্তিত হয়ে পড়ে। তারা মনে করে যে স্থানীয়রা আস্তে আস্তে বৌদ্ধ ধর্মের দিকে ধাবিত হচ্ছে। তাই তারা আগে থেকে এর বিরোধীতা করে আসছিল।

থ্রি-রিভার্সের মেয়র এড ম্যাকএলয় স্থানীয় বাসিন্দা এবং ভিক্ষুণীদের সাথে আলাচোনার মাধ্যমে বিদ্যমান সমস্যার অবসান ঘটিয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের পথে ধাবিত করতে অনেকটা সহযোগীতা করেছেন।

ভিক্ষুণী ভেন. সাঁই বছেন যে নতুন আবাসনটি দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার একটি অংশ মাত্র। এটি হবে বৌদ্ধ ধর্ম অধ্যয়নের জন্য প্রায় ১,৪০০ ভিক্ষুণীর আবাসন। এই প্রকল্পের সাথে জনসাধারণের জন্য একটি  উদ্যান এবং শিশুদের জন্য একটি খেলার মাঠ অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।

“আমরা কেবল ভিক্ষুণীদের জন্য বাড়ি তৈরি করবো না। আমরা আশা করছি আমাদের কিছু জয়গা জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখবো। আপাতত আমরা প্রতিবেশীদের চাওয়া পাওয়ার উপর গুরুত্ব দিচ্ছে। পরবর্তীতে তাদের সাথে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” (সিবিসি নিউজ)

আরো পড়ুন>>

বৌদ্ধ বার্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!