আমেরিকায় ক্যাথলিক চার্চকে বৌদ্ধ বিহারে রূপান্তর

আমেরিকার আইওয়া ইন্ডিয়ানোলার একটি ছোট শহর। জনসংখ্যা প্রায় ১৫,৮৩৩ জন। সেন্ট থমাস অ্যাকুইনাস হলো শহরটির একটি প্রাক্তন ক্যাথলিক চার্চ। খুব সম্ভবত আগামী মাসে সেন্ট থমাস অ্যাকুইনাস বৌদ্ধ বিহারে রূপান্তরিত হবে।

শহরের কারেন বৌদ্ধ সমিতির কাজের জন্য ক্যাথলিক চার্চ থেকে বৌদ্ধ মন্দিরে রূপান্তর কারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ইন্ডিয়ানোলার প্রতিনিধি ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন পরিচালক, চেরিল ডিসেল বলেন, “এলাকায় অন্য কোথাও বৌদ্ধ উপাসনালয় নেই তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি পুরাতন চার্চটি বৌদ্ধদের উপাসনালয় হিসেবে বৌদ্ধ বিহারে রূপান্তর কার হবে।”

আইওয়া, ইন্ডিয়ানোলায় কারেন বৌদ্ধ সমিতি প্রায় ৫০টি পরিবার নিয়ে গঠিত। কারেন বৌদ্ধ সমিতি চার্চের পুনর্গঠনের জন্য আবেদনে লিখেছিল: “অবশ্যই এটি একটি শান্তিপূর্ণ চিন্তার জায়গায় পরিনত হবে।”

কারেন বৌদ্ধ অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে জাননো হয়েছে, নবগঠিত বিহারটিতে একজন থেরবাদী বৌদ্ধ ভিক্ষু অবস্থান করবেন।

Saint Thomas Aquinas
Saint Thomas Aquinas

কারেন বৌদ্ধ অ্যাসোসিয়েশনের বেশিরভাগ পরিবার মিয়ানমার থেকে আগাত শরণার্থী। ২০০৬-০৭ সালে জাফরান বিপ্লব থেকে পালিয়ে তারা আইওয়াতে এসেছিল।

চার্চ ভবনটি সিম্পসন কলেজের মালিকানাধীন। জন ওয়েল, সিম্পসন কলেজের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং একাডেমিক ডিন। চলতি বছর সেপ্টেম্বর মাসে বিল্ডিংটির পুনঃ নির্মাণের উদ্দেশ্যে বৌদ্ধদের পক্ষে কথা বলেছিলেন তিনি। তিনি বলেন, ”বৌদ্ধদের এই জায়গাটি ক্রয় করা বৌদ্ধদের জন্য সৌভাগ্যজনক হবে কারণ ২০২২ সালের মধ্যে সিম্পসন কলেজে একজন বৌদ্ধ অধ্যাপক নিয়োগের পরিকল্পনা করছে।

ওয়েল বলেন, “আমরা কারেন বৌদ্ধ সমিতির সাথে বসবাস করার জন্য এবং ক্যাম্পাসে বৌদ্ধ ভিক্ষু থাকার সুযোগ নিয়ে সত্যিই অধীর উদ্দীপ্ত। ছাত্ররা এখানে শিক্ষার মাধ্যমে বৌদ্ধদের সাথে কাজ করার এবং তাদের সাথে কথা বলা ও মেশার সুযোগ পাবে। এটি আমাদের জন্য সত্যিই একটি উত্তেজনাপূর্ণ সুযোগ।”

বর্তমানে, আইওয়াতে প্রায় ২০টি বৌদ্ধ উপাসনালয় রয়েছে। এখানে প্রায় ৩.১৫ মিলিয়ন লোক বাস করে। পাবলিক রিলিজিয়ন রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআরআই) অনুসারে, আইওয়া প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে অর্ধেকেরও কম যুবক শ্বেতাঙ্গ এবং খ্রিস্টান। আইওয়াতে প্রতি ১০ জনের মধ্যে চারজনের বেশি প্রাপ্তবয়স্ক কোন ধর্ম বিশ্বাস করেন না।

আইওয়ার শহরগুলোতে গড়ে ওঠা নতুন বৌদ্ধ মন্দিরগুলো ক্রমশ বৌদ্ধ ধর্ম বিস্তারে ভূমিকা পালন করছে। শহরের অনেক মানুষ এখন বৌদ্ধধর্মের প্রতি ধাবিত হচ্ছে। রাজ্যটি গত দুই দশকে এশিয়ান আমেরিকান এবং প্যাসিফিক আইল্যান্ডারস (AAPI) হিসাবে চিহ্নিত ৪৯,০৭৩ জন মানুষ বৃদ্ধি পেয়েছে। যা রাজ্যের তথ্য অনুসারে ১৪৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

আরো পড়ুন>>

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!